Breaking News
Home / Health Tips / বাসায় বসেই আপনার স্তনকে আকর্ষনীয় করুন !! ছেলেরা দেখবেনা
বাসায় বসেই আপনার স্তনকে আকর্ষনীয় করুন
বাসায় বসেই আপনার স্তনকে আকর্ষনীয় করুন

বাসায় বসেই আপনার স্তনকে আকর্ষনীয় করুন !! ছেলেরা দেখবেনা

মেয়েদের স্তন সুন্দর, ফর্সা ও আকর্ষনীয় করার পদ্ধতি

মেয়েদের সৌন্দর্যের একটা গুরত্বপূর্ণ অংশ হল তাদের স্তন। মেয়েদের একটু বয়স বাড়ার সাথে সাথে শরীরের গঠনের বিশেষ পরিবর্তন আসতে থাকে। ১২-১৩ বছরে এই লক্ষণ বোঝা যায়। মেয়েদের বিশেষ কিছু অংশে এই পরিবর্তন বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যায়। কিছু নিয়ম মেনে চললেই মেয়েরা তাদের স্তনকে সুন্দর রাখতে পারে। নিচের নিয়মগুলো মেনে চললে খুব সহজেই স্তনকে সুন্দর ও আকর্ষনীয় করা সম্ভব।
স্তনে তিন ধরনের সমস্যা থাকে-
১/ অপুষ্ট স্তন, ২/ ভীষণ ভারি বা বিশাল মোটা স্তন, ৩/ ঝুলে পড়া স্তন।
স্তনের সৌন্দর্য বৃদ্ধির উপায়-
১/ স্তন বড় বা ছোট তা বুঝে নির্দিষ্ট ব্যায়াম করুণ।
২/ খুব টাইটও নয়, আবার খুব ঢিলেও নয় এমন ব্রা পরুন।
৩/ দিনে ২ বার প্রথমে গরম ও পরে ঠান্ডা এ ভাবে কয়েক বার পানি ঢালুন।
৪/ বড় ও মোটা স্তন যাদের, তারা চর্বি বা স্নেহ জতীয় খাবার থেকে দূরে থাকুন।
৫/ স্তনের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য বেশি করে দোলনা খান এবং সাতার কাটুন।
৬/ প্রতিদিন স্নানের আগে বাথরুমে ৫ মিনিট ব্যায়াম করুন যাতে স্তনের পেশিতে চাপ পড়ে।
৭/ রাতে ব্রা খুলে ঘুমান।
৮/ স্তনের নিপেল সৌন্দর্য বাড়াতে একটা খালি বোতলে গরম পানি ভরে রাখুন। এতে বোতলটা কিছুটা গরম থাকবে। এ অবস্থায় ঐ বোতলের মুখে আপনার স্তনের নিপেল ঢুকিয়ে দিন। বোতল ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত ঢুকিয়ে রাখুন। স্তন এর নিপেল বিকাশে এটি সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি।
উপরোক্ত নিয়ম ছাড়াও স্তন মালিশের মাধ্যমে স্তন সুন্দর রাখা সম্ভব-
খাঁটি দুধের সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল দিয়ে স্তনে মালিশ করুন। মালিশ করবেন নিচের থেকে উপরের দিকে। এতে স্তনের রক্ত সঞ্চার স্বাভাবিক হবে ও সুডৌল হবে। মালিশ করার পর ঠান্ডা পানিতে স্নান করুন। আশা করা যায় উপরোক্ত পদ্ধতি মেনে চললে স্তন ফর্সা হওয়ার পাশাপাশি সুন্দর ও আকর্ষণীয় হবে।
বি:দ্র:কারো তাড়াতাড়ি এবং কারো কারো ক্ষেত্রে দেরিতে ফলাফল লক্ষ্য করা যায়।

Loading...

About admin

Check Also

কি খেলে ছেলেরা সারাজীবণ ২৫ বছরের যুবকের মত থাকবে —– শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিন

সেক্স বাড়ানো জন্য যৌন শক্তি বর্ধক ট্যাবলেট খাবেন না। এই ঔষধ পুরুষকে ধ্বজভংগ রোগের দিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *